আমার নাম মানুষ

  •  
  •  
  •  
  •  

এই শহরে প্রতি মিনিটে ঘটে যায় হাজার ঘটনা, কখনো দূর্ঘটনা। সামিল হতে হয় আমাদের, আশেপাশে সকলের। উড়ো মন্তব্য কানে আসে, গায়ে এসে লেগে বসে। কখনো অপমানের তীক্ষ্মতা কেটে বসে গলার উপর। বুকে চেপে আসে হাজার প্রতিবাদ, কখনো সূক্ষ্ম ভাবে এড়িয়ে যেতে হয়, কখনো ঝড় তুলতে হয় প্রতিবাদে।
– মাইয়া মাইন্সের এমনে ফাল দিয়া জীবনে বাসে উঠবার দেহি নাই। আর কতো দেহুম আল্লা খোদা জানে।
-সন্ধ্যার পর পল্লিবিদ্যুৎ যাচ্ছে। নিশ্চয়ই মেয়ের সমস্যা আছে।
-মেয়েটি হোস্টেলে থাকে। না যেন কত কি করে বেড়ায়।
-বাবা মা ই বা কেমন এত বড় মেয়েকে হোস্টেলে দিয়ে রাখছে!
আরে চুপ থাকো না, পরের মেয়ে যাই করুক আমাদের কি?
– আপু, আপনি জানালার পাশে সরে বসুন। আমাদের অনেকেই ভীড়ের মাঝে অমানুষ হয়ে উঠতে পছন্দ করে।

রোজ চলতে ফিরতে শোনা হাজার মন্তব্যের মাঝে উপরের তিনটা মন্তব্য তুলে ধরা। প্রতিটাই জানান দেয় আমি মেয়ে। হোক সেই মন্তব্য কোনো বৃদ্ধের করা, কোনো যুবকের বা আমার মতো কোনো নারীর। কোনোটায় অবজ্ঞা, কোনোটায় অপমান, কোনোটা পরম সতর্কতার উষ্ণতা। জয়গান নারীর, জয়গান নারীত্বের। শুভকামনা তাদের প্রতি যাদের কাছে এখনো নারী মানে মেয়েছেলে মা নয়, নারী মানে একরাশ ন্যাকামি শক্তি নয়।

আমি, আমরা নারী। পৃথিবীর প্রত্যেক নারীর জন্য যারা রোজ লড়ে যাচ্ছে, আমার দেখা সেইসব নারীর জন্য যাদের কাছে জীবন এর মানে খোজার জন্য নিজেকে রোজ ভাংতে হয়, প্রত্যেকের প্রতি শ্রদ্ধা। আমার দেখা সেইসব নারীদের প্রতি নম্রতা যারা নারীত্বের উজ্জ্বলতায় প্রতিনিয়ত উজ্জ্বল!

১৯/০১/২০২০, ১১.৪৪ PM

নোটঃ একজন নারীর ফেসবুক পেজ থেকে সংগৃহীত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *