আমিই আমার সিন্ডিকেট (ষষ্ঠ পর্ব)

  • 1
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

অথচ ঘৃণার পর আর ভালবাসা জন্মায়না। করুণা জন্মায়। আমার কারো প্রতি ভালবাসা নেই। করুণাও নেই। চলতে হয় তাই চলতে থাকা। বর্নহীন আলোর মতো, অন্ধকারের মতো, নিশ্চুপ সময়ের মতো। পেছানোর উপায় নেই। নিজেকে গুছিয়ে নেবার আশা নেই। বিরামহীন আলস্যতায় ভুগছি শুধু। তাই জোর করে কাজে ডুবে থাকা। কিংবা কোনো আশা খুঁজছি। কিন্তু নিজ হাতে পাবার ভাগ্য নেই। এতো বিস্তীর্ণ দীর্ঘশ্বাসে কারো সাথে নিঃশ্বাস মেলাবার সুযোগ নেই। আমি হাসি, হাসির ভেতর অসংখ্য আকাঙ্খা, হতাশা, চাপা আনন্দ লুকিয়ে থাকে। রাত হলে নিজের নিশ্চুপতা অসংখ্য কোলাহলের জন্ম দেয়। এতো কোলাহলে ঘুম আসেনা। যে একলা সে শত ভীরের মাঝেও একলা।

আমার পাশে অনেক মানুষ। এরা আসে। এরা যায়। এরা আমার অংশ নয়। বৃষ্টি এলে ঘর বন্ধ করে শুয়ে থাকি যেনো বাইরের বৃষ্টি আমায় না ছোঁয়। মেঘে মেঘে বিদ্যুৎ চমকালে ভয় লাগেনা। নিকষ অন্ধকারে বিদ্যুৎ চমকালে যেমন পরিচিত জায়গাটাও চোখে অদ্ভুত লাগে, তেমন অদ্ভুত ভালো লাগা – না লাগার মিশ্র বোধ তৈরি হয়। মাথার ভেতর অবর্ণনীয় ভাবনাগুলোকে ক্ষান্ত দিই। কি হয় এসব ভেবে! কিংবা কি হবে? কিংবা কি হয়েছে ভেবে ভেবে! হয়তো দিনশেষে একরাশ শূন্যতা এসে ভর করে নিজের কাছে। এই শূন্যতার কথা তো কতোবার বলেছি। তবুও বার বার বলতে ইচ্ছে হয়।

হয়তো শোনার কেউ নেই এজন্যে কিংবা কাউকে বলতে চাচ্ছি সেজন্যে। নিজের কল্পনা আর বাস্তব মিলে যায়নি কখনোই। আমি না পাওয়ার দলের একজন। এই দলে সদস্যের সংখ্যা পৃথিবীতে অনেক। ভালো সময়গুলি তাই ভ্রুকুটি করে থাকে। কাছে আসলে ভয় লাগে। বৃষ্টির মতো ঝাপসা সামনের প্রতিটা পথ। পথ পাড়ি দিতে সাহস লাগে। আমি বড়ই ভীতু প্রকৃতির। পেতে ভয়। হারাতে ভয়। সময়ে অসময়ে নিজের থেমে যাওয়া বোধ হয় ইদানিং। জীবনের নিশ্চুপ সময়টায় যে কতো কথা জমা হয়ে আছে তা আমিই জানি শুধু। রাত বাড়লে সেই নিস্তব্ধের কোলাহল বাড়ে। নিস্তব্ধের কোলাহল শুনতে শুনতে ঘুম এসে যায় একসময়।

[চলবে]

১৩/০৮/২০২০, ১১.৪৪ AM

আমিই আমার সিন্ডিকেট (প্রথম পর্ব)

আমিই আমার সিন্ডিকেট (দ্বিতীয় পর্ব)

আমিই আমার সিন্ডিকেট (তৃতীয় পর্ব)

আমিই আমার সিন্ডিকেট (চতূর্থ পর্ব)

আমিই আমার সিন্ডিকেট (পঞ্চম পর্ব)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *