কথা

  •  
  •  
  •  
  •  

[ছেলে – মেয়ে কথোপকথন]
আপনি একা থাকেন?
– সবাই একাই থাকে। একসঙ্গে থাকার ভান করে মাত্র।
আপনি করেছেন?
– সবাই-ই তো করে। আমি করলে দোষ কোথায়।
আপনাকে তো চিনি না আমি!
– চিনে নিতে কতক্ষণ। জন্মের পরপরই তো সবাই অপরিচিত। ধীরে ধীরে নিজ প্রয়োজনে চিনে নেয়।

[মেয়ে – ছেলে কথোপকথন]
তোমার চোখের প্রতি ফোটা জল, পূর্ণিমাতিথিতে জোনাকীর মতো একেকটা প্রেমের অক্ষরের জন্ম দেয়।
– প্রেম! আবার প্রেম!
যতখানি দীর্ঘশ্বাস, ততখানিই প্রেম। ডার্ক রোমান্টিসিজম। মাঠেঘাটে বাজারে মহল্লায় চার দেয়ালের ঘরে ফেরি করে দু:খ বিক্রি হয়।
– তো?
ভালবাসা পাওয়া যায় না কোথায়ও। দিনশেষে ভালবাসার রঙচঙা মোড়কে মোড়ানো দু:খই পাওয়া যায়। আসলে একটা খুন, দুটো খুনির জন্ম দেয়
-কেমন?
সে গল্প না হয় অন্য একদিন হবে। আজ বিদায়।

১৫/০৭/২০২০, ১১.০১ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *