কেউ জানে না

  •  
  •  
  •  
  •  

এক সময় কেউ জানবেনা সিনেমা হলে মর্নিং শো নামের একটা শো হত যেখানে এক টিকিটে দুই ছবি দেখানো হত। এক সময় কেউ জানবেনা স্কুল ব্যাগে সিভিল কাপড় লুকিয়ে রেখে স্কুল পালানোর গল্প। এক সময় কেউ জানবেনা শবে বরাতের রাতে ঢাকা শহর চোষে বেড়ানোর গল্প। এক সময় কেউ জানবেনা সন্ধার পর কারেন্ট চলে গেলে বিনা নোটিশে এক সাথে সবার জড়ো হবার গল্প। এক সময় কেউ জানবেনা শীতের রাতে ফেলে রাখা চার দেয়ালের মাঝে ব্যাট মিন্টন খেলার গল্প। এক সময় কেউ জানবেনা তিন গোয়েন্দা পড়ে গুপ্তধন খুঁজতে যাওয়ার গল্প! এক সময় কেউ জানবেনা বাঁশের এন্টেনা ঘুড়িয়ে বিটিভি বা ইটিভি দেখার গল্প। সেই ইত্যাদি, ছায়াছন্দ, মিনা, টারজান, সিন্দাবাদ, আলিফ লায়লা অথবা রেসলিং দেখার গল্প।

victim

এক সময় কেউ জানবেনা গ্রীষ্মের ছুটিতে গ্রামে যাওয়ার গল্প। ভূতের ভয়ে টিনের ঘরে কুপি জ্বালিয়ে গুটি সুটি মেরে থাকার গল্প, এক বিছানায় এক বয়সী সব কাজিনদের সাথে লেপ মুড়ি দেয়ার গল্প! এক সময় জানবেনা টুক পলান্তিস, ইচিং বিচিং, বরফ পানি, সাত চাড়া, গোল্লা ছুট, বৌঁছি নামের কোনো খেলা ছিলো। কেউ জানবেনা আমের আটি, লিচুর বিচি, মাটির মারবেল, গুলতি, ম্যাচের খোল, সিইগারেটের খোল, নামক কোনো খেলনা ছিলো। এক সময় কেউ জানবেনা বিলের মাঝে মাছ ধরা, খেজুরের ডাল দিয়ে ঘোড়া বানানো, সুপাড়ির ডাল, বেয়ারিং, মালাই, কট কটি এই শব্দ গুলা।

637.2

যেখানে হাজার টাকার দামী খেলনা নিয়ে পোলাপাইন মুখ ভার করে বসে থাকে সেখানে আমরা নিজেরা খেলা আবিষ্কার করতাম। আইসিসিও জানেনা বাংলাদেশে একটা প্রজন্ম ছিলো যারা হাজার নিয়মে ক্রিকেট খেলত। ১৯৯০ থেকে ২০০৫ বাংলাদেশে আর আসবেনা। হয়ত সবাই আরো আধুনিক হবে, অনেক বেশি চালাক হবে! তবে আমাদের এডভেঞ্চারাস লাইফের কাহিনী তাদের কাছে শুধু গল্প হবে। “যায় দিন ভালো আসে দিন খারাপ” ইহাই বোধ হয় সত্য সবার জীবনে!

২৯/০৮/২০১৭, ১০.৫১ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *