দাম্পত্যে সুখ

  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের সমাজের একটি সাধারন প্রবনতা হচ্ছে ভাত দেখে মেয়ে বিয়ে দেয়া। সোজা কথায় পাত্রের আর্থিক অবস্থা দেখে মেয়ে বিয়ে দেয়া। এক হিসাবে এটা ঠিক আছে, আরেক হিসাবে সম্পূর্ন ভুল। যে মেয়ে এসিতে ঘুমায়, জীবন যেহেতু বাংলা সিনেমা নয়, সেই মেয়ের বাবা অবশ্যই চাইবে না যে তার মেয়ে বস্তির গরমে ছটফট করুক। আবার এটাও চাইবে না যে সেই ছেলে মাতাল হয়ে এসে রাতে স্ত্রীকে পেটাক। প্যাচটা আসলে এইখানেই। আমাদের দাদাদের আমলে বিয়ে হত বিশাল মাপজোক করে। সবার না, আমি কেবল খান্দানি পরিবারদের কথা বলছি। আপনারা প্রিন্সিপাল ইব্রাহীম খা সাহেবের আত্মজীবনি পড়লে দেখবেন তার পিতার সময় কত কড়াকড়ি ভাবে মান নির্নয় করে বৈবাহিক সম্পর্ক স্থির করা হত। অবশ্য এখন এসব শুনিয়ে আর কি হবে, এ যুগে মান নির্নয় বলতে তো বোঝায় ছেলের পকেট কত ভারী আর মেয়ে দেখতে কেমন, এন্ড অফ স্টোরি!

সেই যুগে বিয়ে করতে গেলে বংশীয়রা অপর পক্ষের চৌদ্দ গোষ্ঠির খবর নিত। কার পেশা কি ছিল, কারো কোন অপবাদ ছিল কিনা, আয় রোজগার হালাল কিনা, ইত্যাদি, ইত্যাদি। সেই যুগে বিয়ে যে এত টেকসই হত তার পেছনে এটা আরেক কারন ছিল, শ্রেনী অনুযায়ী ম্যাচিং হত। কাজেই আউলার ঘরে জাউলা যেয়ে পড়ার কোন সম্ভাবনাই ছিল না। লেটস বি অনেস্ট, আজকাল বিয়ে দেয়ার সময় মূলত কি দেখা হয়? ছেলে হলে দেখা হয় আয় কত, আর মেয়ে হলে মেয়ে দেখতে কেমন আর মেয়ের বাপের সম্পত্তি কত, দ্যাটস অল। ফলে যা হয়, সাথে যেসব সাইড ইস্যু থাকে, যা তারা বিয়ের সময় বা আগে সিরিয়াসলি নেয়না, পরে মাথা চাড়া দিয়ে উঠে সংসারটাই ভেঙ্গে দেয়। সহজ ভাষায় বলি, যে ছেলের হারাম ইনকাম আছে, ঠিক কি কারনে মেয়ের বাপেরা মনে করে সেই ছেলে বিয়ের পর নেক জীবন কাটাবে বা তার মেয়ের সাথে ভালো আচরন করবে? একটা বড় ধরনের হারাম কাজ নিয়মিত করতে পারলে অন্য হারাম কাজগুলি করতে তার সমস্যা কোথায়?

আর পুরুষেরাও বলিহারি। এমন প্রচুর পুরুষ আছে যারা সানি লিওন হার্ডওয়ারে রাবেয়া বসরী সফটওয়ার চায়, মেয়ের গায়ের রঙ, চেহারা আর ফিগার দেখেই কাত, সেই মেয়ের মানসিকতার সাথে নিজের মানসিকতা আদৌ মেলে কিনা, এই মেয়ের সাথে সংসার করা যাবে কিনা, হু কেয়ারস। ‘আগে খেয়ে নেই, হজমের সময় দেখা যাবে’ মনোভাব। আজকাল এত বিয়ে বিচ্ছেদ কেন হয় জানেন? ভুল মানসিকতা সম্পন্ন পরিবারে বিয়ে হবার কারনে, কেউ শিক্ষিত এবং অবস্থাপন্ন, আপনিও তাই, কিন্তু তার মানে এই না যে তার সাথে আপনার মানসিকতা ম্যাচ করবেই, বাস্তবতা হচ্ছে শিক্ষাগত যোগ্যতা আর আর্থিক সামর্থ্য বাদেও এমন হাজারটা ইস্যু থাকে যা সুখী জীবন চাইলে বিয়ের আগেই বিবেচনা করে নেয়া উচিত।

২৩/০৫/২০২০, ০১.৪৭ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *