বিসর্জন

  •  
  •  
  •  
  •  

আমি – বিসর্জন তো কষ্টের তবে ওরা আনন্দ করে কীভাবে?
গুরু – যে বিসর্জন আবার আগমনকে নিশ্চিত করে সে বিসর্জনও আনন্দের।
আমি – তবে কেউ যদি আমাদের ছেড়ে চলে যায় আমাদের বুক ফেটে যায় কেন? কেন আমরা কাঁদি-উৎসব করি না।
গুরু – আমাদের সে বিদায়ে আগমন নিশ্চিত না। তাই ভয় হয়, আমরা স্থায়ী বিয়োগ বেদনার উৎকণ্ঠতায় কাঁদি। আচ্ছা মুসলমানেরা মরলে কি বলে?
আমি – ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাইহি রাজিউন।
গুরু – মানে জানো?
আমি – নিশ্চয় আমরা আল্লাহ্‌র কাছ থেকে এসেছি এবং তাঁর কাছেই প্রত্যাবর্তন করবো।

গুরু – এই যে আল্লাহ্‌র কাছে থেকে আসা- মানে আল্লাহ্‌র কাছ থেকে বিয়োগ; আবার আল্লাহ্‌র কাছে ফিরে যাওয়া এইটা আল্লাহ্‌র সাথে আবার যোগ। মজার ব্যাপার হচ্ছে। মুসলমানেরা মৃত্যুকে শেষ ভাবে না- এইটাকে ভাবে নতুন এক অনন্তের সূচনা। যেখানে সবাই আবার এক অনন্ত জীবনের ভেতর প্রবেশ করবে। তাই ইন্নালিল্লাহর আগে তারা কিন্তু আরেকটা শব্দ বলে। জানো?
আমি – তাই নাকি? কি সেইটা?
গুরু – ´আলহামদুলিল্লাহ্´ বলে‌। স্রষ্টার সাথে নিকতবর্তী হবার আনন্দ এইটা।
আমি – তবে যে আমরা শোক করি?
গুরু – আল্লাহ্‌ তো আমাদের শোক করতে বারণ করেছেন। সাচ্চা মুমিন হলে আল্লাহ্‌র সাথে সাক্ষাৎ (আমাদের তিরোধান)- ভয় নয় ভালোবাসার; আশেকের মতন আনন্দের হবার কথা ছিল।

(মাইকে এক মৃত্যু সংবাদ)
আমি – আলহামদুলিল্লাহ্‌
গুরু – নিশ্চয় আমরা আল্লাহ্‌র কাছ থেকে এসেছি এবং তাঁর কাছেই প্রত্যাবর্তন করবো।

১০/০২/২০২০, ০৬.৫৪ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *