বিয়ের একাল সেকাল (শেষ পর্ব)

  •  
  •  
  •  
  •  

আসবে সে আজ, গরম খবর
জোর খবরে জেনেছি এই,
এমন দিনেই ঘরে আমার
মেলে দেবার মাদুরও নেই!

যাই হোক, এরেঞ্জড ম্যারেজ এতো পুরোনো কনসেপ্ট হয়েও টিকে আছে এর উপকারিতা এবং গ্রহণ যোগ্যতার কারণেই। এরেঞ্জড ম্যারেজ এ শুধু দুইজন মানুষের সম্পর্ক হয় না হয় দুটো পরিবারের। নতুন ছেলে বা মেয়েটাকে দুই পরিবারের সবাই মন থেকে একসেপ্ট করে নেয়। তাদের প্রতি সবার মনোযোগ থাকে ভালোবাসা থাকে। নইলে অধিকাংশ প্রেমের বিয়েতে শশুর শাশুড়ি দেবর ননদ শ্যালক শ্যালিকারা তাদের পরিবারের অযাচিত নতুন সদস্যকে দেখার সাথে সাথে ৯০ ডিগ্রি এঙ্গেল এ মুখ ঘুরায়ে নেয় কোনো কারণ ছাড়াই।

অনেকেই বলবেন সংসার করবো যার সাথে তাকেই দেখলাম না, চিনলাম না, পরিবারের ভালোবাসা দিয়ে কি করবো? তাদের উদ্দেশ্যে,
– শত্রুর সাথেও যদি একটা ঘর, বিছানা বালিশ, কাঁথা (আর খুলে বললাম না) শেয়ার করতে হয় তার প্রতিও মায়া পরে যাবে। আর স্বামী/ স্ত্রীর সাথে কাঁথা বালিশের সাথে সাথে পুরা জীবনটাই শেয়ার করতে হবে শুধুমাত্র এই মানসিকতার কারণেই ৫০% মায়া অটো তৈরী হয় আর বাকি ৫০% তৈরী হওয়াটা প্রত্যকের জীবনেই একেকটা “বিরাট ইতিহাস”।

১০/০৯/২০১৯, ০৯.৪৯ PM

বিয়ের একাল সেকাল (প্রথম পর্ব)

বিয়ের একাল সেকাল (দ্বিতীয় পর্ব)

বিয়ের একাল সেকাল (তৃতীয় পর্ব)

বিয়ের একাল সেকাল (চতুর্থ পর্ব)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *