ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (শেষ পর্ব)

  •  
  •  
  •  
  •  

এনএলপি’র এরকম আরো প্রচুর টেকনিক আছে। কিন্তু এই টেকনিকটা আমার নিজের ব্যক্তিগত পছন্দের টেকনিক এবং আমি বহু বছর আমার মা’র মতই না জেনে এইটা প্র্যাকটিস করছি নিজের লাইফে। এই জিনিসের নাম ‘কোভার্ট হিপনোটিক পারসুয়েশান টেকনিক’। ধরেন আপনি রাত দশটায় অফিস থেকে বাড়ি ফিরছেন। একটু আগে বৃষ্টি হয়েছে। রাস্তা খালি। আপনি খেয়াল করলেন একটু সামনে ল্যাম্প পোস্টের নিচে একটা ছেলে দাঁড়িয়ে আছেন। আপনার কাছে তার মতলব সুবিধার মনে হচ্ছে না। আপনি কী করবেন? দৌড় দিবেন উল্টা দিকে? চিৎকার দিয়ে কাউকে ডাকবেন? অন্য রাস্তা খোঁজা শুরু করবেন? ফোন করে কাউকে আসতে বলবেন?

আমি হইলে কী করব বলি। আমি কনফিডেন্সের সাথে উনার দিকে আগায় যাব। বলব,
– “ভাইয়া, আমার খুব ভয় লাগছে। পুরা রাস্তা খালি দেখছেন তো? আপনাকে দেখে মনে হচ্ছে আপনাকে বিশ্বাস করা যায়। আমাকে একটু বাড়ি আগিয়ে দিবেন প্লিজ?”
এখন আপনার উনার কাছে সাহায্য চাওয়াতেই উনার যদি আসলেই আপনাকে ধর্ষণ বা ছিনতাইয়ের ইচ্ছা থাকে তা চলে যাবে। এই ঘটনা আমি বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত্য অঞ্চলে গিয়ে প্র্যাকটিস করেছি। যেই হুজুর আমার শর্টস এবং ট্যাং টপ দেখে আমাকে দোররা মারতে রেডি, আমি উনাকে গিয়ে বলছি,
– “চাচা, দেখেন তো আমি তো বেশি কাপড় আনি নাই, এই কাপড়ে আপনাদের এলাকায় আমার ঝামেলা হবে নাকি?”
তখন উনিই আমারে আম্মা, আম্মাজী ইত্যাদি ডেকে আমাকে নিজ দায়িত্বে সুরক্ষা দেওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছেন। এলাকার মাস্তানরা, এলাকার মসজিদের ইমামরা নিজেদেরকে এলাকার মুরুব্বী বলে মনে করেন।

যেই মাস্তান আপনাকে দেখলেই শিষ বাজান, আপনি গিয়ে উনাকে বলেন, উনি আসার পর থেকে কেমন মেয়েদের উপর অত্যাচার কমে গেছে। দেখবেন এরপর দিন থেকে উনি নিজ দায়িত্বে বাকি মাস্তানদের শাসনে রাখছেন যাতে এলাকার মেয়েদের কেউ ডিষ্টার্ব না করেন। আমি জানি পুরুষেরা নিজেদের মেয়েদের অভিভাবক ভাবতে ভালোবাসেন। ডিফিকাল্ট সিচুয়েশানে তাই আমার পুরুষকে এই আপাতঃ ক্ষমতা দিয়ে ঝামেলাহীনভাবে পরিস্থিতি থেকে বের হয়ে আসতে একটুও আত্মসম্মানে লাগে না।

২৭/০১/২০১৯, ১১.৪৯ PM

ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (প্রথম পর্ব)

ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (দ্বিতীয় পর্ব)

ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (তৃতীয় পর্ব)

ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (চতুর্থ পর্ব)

ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (পঞ্চম পর্ব)

ব্যক্তিগত বিকাশ এবং আন্তঃব্যক্তিগত যোগাযোগ (ষষ্ঠ পর্ব)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *