বয় ফ্রেন্ডের জাষ্ট ফ্রেন্ড

  •  
  •  
  •  
  •  

সাদিয়া নামের এক মেয়ে দাবী করতেছে – সে একসময় নাকি আমার প্রেমিকা ছিল! আমি কিছুতেই মনে করতে পারছিনা, ঠিক কখন এই সাদিয়ার সাথে আমার প্রেম হয়েছিলো! অসংখ্য প্রাক্তন প্রেমিকার ভিড়ে দু একটা সাদিয়ার নিখোঁজ হওয়াটা অস্বাভাবিক না! আমি কিছুটা ভ্যবাচ্যাকা খেয়ে তাকে বললাম,
– প্লিজ আপনার পরিচয়টা কি একটু ডিটেইলসে বলবেন? আমি ঠিক আপনার স্মৃতি মনে করতে পারছিনা!
সাদিয়া জবাব দিল,
– ৫ বছর আগে তুমি ফেসবুকে ফারিয়া নামের এক মেয়েকে মেসেজ দিয়েছিলে। তারপর কথা বলতে বলতে তার সাথে তোমার প্রেম হয়ে যায়। তারসাথে যেদিন তোমার প্রথম দেখা হয়, সেদিন তার সাথে তার এক বান্ধবীও ছিল। সেই বান্ধবীর নাম নুসরাত। তুমি সেই নুসরাতের ফোন নাম্বার যোগার করে ফারিয়ার সাথে ব্রেকাপ করে ফেলো, এরপর নুসরাতকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে সম্পর্কে জড়াও। নুসরাতের এক খালাতো বোন ছিল নাঈমা। নুসরাতের সাথে তোমার একদিন ঝগড়া হয়, এরপর সেই ঝগড়া মিটানোর জন্য তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে নাঈমাই তোমাদের মধ্যস্থতা করেছিলো।

একটু থেকে দম নিয়ে সাদিয়া আবার বলতে শুরু করলো,
– এরকম মাঝে মাঝে কথা বলতে বলতে তুমি নাঈমাকে পটিয়ে নুসরাতকে ছেড়ে দিলে। নাঈমার এক কাজিন ছিল অস্ট্রেলিয়াতে থাকতো। তার নাম ছিল উর্মী। উর্মীর সাথে তোমার ফেসবুকে এড হয়। এরপর নাঈমাকে অবহেলা করে দূরে সরিয়ে তুমি ভিডিওতে প্রেম করেছিলে উর্মীর সাথে। যেহেতু অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার মুরদ তোমার ছিলনা, তাই উর্মীর এক বেস্টফ্রেন্ডের জাস্টফ্রেন্ডের সাথে তুমি পরিচিত হয়ে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিয়েছিলে। সেই জাস্টফ্রেন্ডের নাম ছিল বৃষ্টি। আমি সেই বৃষ্টির মামাতো বোনের খালার ছোট বোনের মেয়ের বান্ধবীর ক্লাসমেটের কাজিনের ফুফাতো বোনের বয়ফ্রেন্ডের জাস্টফ্রেন্ড ছিলাম। আমার নাম সাদিয়া।

সাদিয়ার এহেন বর্ননা শুনে আমার মাথাটা হালকার উপর ঝাপসা দুলে উঠলো। সে বলেই চললো,
– আমার সাথেও তোমার প্রেম হয়েছিলো চক্রাকারে! এখন কি আমাকে চিনতে পেরেছো? আমার স্মৃতি কি একটুও মনে পরছেনা?
আমি কিছুতেই তার স্মৃতি মনে করতে না পেরে, অনুতপ্ত হওয়ার ভান করে বললাম,
– এখন কি চাও আমার কাছে?
সে বললো,
– আমার নতুন বয়ফ্রেন্ডের একটা জাস্টফ্রেন্ড আছে। তুমি কি এই ব্যপারটা একটু হ্যান্ডেল করে দিবা? লাগলে আমি কিছু পেমেন্টও দিবো তোমাকে।

১৮/০৯/২০২০, ১১.৪৪ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *