ভার্চুয়াল মর্গ

  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুকের ব্লকলিস্টটাকে আমি বলি – ভার্চুয়াল মর্গ। এই তালিকাভুক্ত আইডিগুলোর পেছনের মানুষগুলো জীবিত তবে এখানে মৃত হয়ে পড়ে থাকে। কেউ কোনো কথা বলে না, শব্দ করে না। নিরব নিথর হয়ে থাকে। নিজের ফেইসবুক আইডির ব্লকলিস্ট চেক করলাম। লিস্ট যে খুব বড় তা নয়, হাতে গোনা যায়। লিস্টে কোনো শত্রু নেই, নেই কোনো ব্যক্তিগত বা রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ। যে বা যারা আছে সব বিভিন্ন সময়ের প্রিয় এবং প্রিয়তর মানুষ। সময়ের প্রয়োজনে এই মানুষগুলো প্রিয়তর লিস্টে ছিলো, সেই সময়ের প্রয়োজনে নামগুলো ব্লকলিস্টে। অদ্ভুত!

ব্লকলিস্টে পড়ে থাকা একেকটা নামের সাথে সাত জনমের স্মৃতি জড়ানো। যে মানুষটা একসময় চ্যাটরুমের সবার উপরে পতাকার মতো মাথা উঁচু করে থাকতো, সে এখন পড়ে আছে মৃত মানুষের মতো। হয়তো কথা বলতে চায়, জানতে চায়- কেমন আছি; হয়তো অপেক্ষায় থাকে আমি হয়তো জিজ্ঞেস করবো- কেমন আছো বা আছেন? আইডিগুলো মরে যায়, মানুষও মরে যায় তবে স্মৃতি মরে না। কেউ আসলে চলে যায় না, গেলেও লালদাগে বলে যায়- একদিন আমিও ছিলাম, তোমার এই কোলাহলে, টং ঘরের চায়ের দোকানে, ধানক্ষতের আইল ধরে, সজনের ডালে শালিক হয়ে, টিনের ঘরের কার্নিশে চড়ুইপাখি হয়ে ভোরবেলায় কিচিরমিচির হয়ে।

ব্রেইনঘরের স্মৃতির করিডোরেও ব্লকিং অপশন থাকা উচিত ছিলো, খুব বেশি উচিত ছিলো। ভালমন্দ, ডাক হরকড়ার চিঠিপত্তের মতো সুখের গল্প, প্রতারণার ধুঁতরাফুলের গল্প থামিয়ে দেয়া যেতো অনায়াসেই। স্মৃতি এসে বাগড়া বাঁধাতো না ধোঁয়া উঠা কফির মগে, মেলামেইনের প্লেটে কিংবা মুঠোফোনের ডিসপ্লেতে।

০১/০৬/২০২০, ১১.৩৩ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *