ময়ূরাক্ষী

  • 1
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

রুপাঃ তুমি কি জানো, আমি তোমার কথা খুব ভাবি?
হিমুঃ জানি।
রুপাঃ সত্যি জানো?
হিমুঃ হুম, সত্যি।
রুপাঃ কি করে জানো?
হিমুঃ ভালোবাসা টের পাওয়া যায়।
রুপাঃ কেন জানি তোমার কথা সব সময় মনে হয়, এর নাম কি ভালোবাসা?
হিমুঃ আমার জানা নেই রুপা।
রুপাঃ তুমি কি আসবে আমাদের বাসায়?
হিমুঃ আসবো।
রুপাঃ কখন আসবে?
হিমুঃ তুমি বললে এক্ষুনি।
রুপাঃ এত রাতে এলে বাবা হইচই করবেন, তুমি কি সকালে আসতে পার না?
হিমুঃ সেটা কি ঠিক হবে?
রুপাঃ কোনটা?
হিমুঃ এই যে, আমাকে তোমার মনে পরেছে এখন, এই মূহুর্তে। আমি কেন এখন না এসে কাল সকালে আসবো?
রুপাঃ তুমি কি সত্যিই এখন আসবে?
হিমুঃ হুম, এক্ষন আসবো।
রুপাঃ আচ্ছা বেশ আসো।
হিমুঃ তুমি নীল রঙের শাড়ি পরে আছো?
রুপাঃ কেন বল তো?
হিমুঃ যদি নীল রঙের শাড়ি পরে থাকো, তবে গেটের কাছে দাঁড়াও। আমি এলেই গেট খুলে দেবে।
রুপাঃ আচ্ছা।
আমি গেলাম না। আবারো মাসখানেকের জন্য ডুব দিলাম। কারন ভালোবাসার মানুষের খুব কাছে কখনও যেতে নেই।
[ময়ূরাক্ষী]

বইয়ের পাতায় কলমের আঁচড়ে এইভাবে ভালোবাসার কথা আর কেউ এত সুন্দর করে বলতে পারবে বলে মনে হয় না। হুমায়ূন স্যার এই ভালোবাসার বীজ বুনে দিয়েছেন লাখো মানুষের হৃদয়ে। হুমায়ূন স্যারকে মিস করবো সব সময়। স্যার, এদেশের মানুষের হৃদয়ে গল্পের যাদুকর হয়ে বেঁচে থাকবেন চিরদিন।

২৯/০৬/২০২০, ১০.৩৬ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *