জীবিত কিন্তু একপ্রকার মৃত্যুই

একটি অনাহুত মৃত্যু আমাকে দূরে নিয়ে যায়। ছোট ছোট অসংখ্যবার মরে গেছি টের পেয়ে যারা আমাকে ছেড়েছে। ভাবো তাদের কি করে বলি নক্ষত্রের দুপাশ দিয়ে রাস্তা চলে গেছে! একদিন ছিল সকল ঐশ্বর্য দুহাতে ধরে। আর আজ তবে পরিশ্রান্ত শিশুর মত ঘুমিয়ে রইলাম ভালোই। অথচ আমি অনন্ত হতেই অন্ধকার চেয়েছিলাম। সমস্ত আলোর আগে সন্তানের হাত ধরা হলো না এখনো। কিন্তু আত্যন্ত আশ্চার্জ্জনক ভাবে আমি বেঁচে আছি সেই আদমের পর থেকে। মৃত্যু আমাকে, আমার নিস্তরঙ্গ আঁধারকে উন্মচোন করেনি এখনো। আমার বেঁচে থাকা লাশের উপরে অবোধ শিশুর মত আত্মা খেলে যায় এক অদ্ভুত খেলা। প্রতি মুহূর্তে একটি নিশ্চয়তার দাবি নিয়ে। বেঁচে থাকা এবং তারপরেও বেঁচে থাকা। কত সুপ্রশন্ন আমি। Continue reading “জীবিত কিন্তু একপ্রকার মৃত্যুই”