আমার বাবা

আমার বাবা চলে গেলেন আল্লাহ তায়ালার কাছে গত ১ লা জুন ভোরবেলা। তিনি ঘুমের মাঝেই আমাদের ছেঁড়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। আমি উনার সামনে ছিলাম না। কখনো মনেই হয়নি এবং বুঝতেও পারিনি বাবা আমাদের ছেঁড়ে এতো তাড়াতাড়ি চলে যাবে। আমি সেদিন সারা রাত কোন এক অজানা কারনে ঘুমাতে পারিনি। ছট ফট করেছি। ভোর ৬ টার দিকে উঠে নিজের ঘরেই হাঁটা হাঁটি করছি। আনুমানিক সকাল ৭টার দিকে আম্মু এবং মেজো ভাই আমার রুমে কান্না করতে করতে যখন ঢুকলেন, তখন আমার বুকের বা পাশটা ছ্যাঁত করে উঠলো। আম্মু আমাকে আব্বুর কাছে যেতে বললেন। আমি দৌড়ে আব্বুর পায়ের কাছে গিয়ে বসলাম। তার সারা শরীর চাদরে ঢাকা। শুধু মুখটুকু বেরিয়ে আছে। দেখলাম, আব্বু ঘুমাচ্ছেন। যেন একটু পর উঠে সকালের নাস্তা খেয়ে কোরআন শরীফ পড়তে বসবেন। আমি তার পায়ে, হাতে, কপালে, মুখে হাত রাখলাম, দেখার চেষ্টা করলাম – নিঃশ্বাস নিচ্ছেন কিনা? কিন্তু হায়, কোথাও তো কোন সাড়া শব্দনাই। মূহুর্তেই আমার পৃথিবী দুলে উঠলো। আমার দু’চোখ বেয়ে নামতে থাকলো জলের স্রোত। আমি বাবা হারা হলাম। বাবাকে ভালোবেসে, জড়িয়ে ধরে “বাবা” ডাকা হলোনা। Continue reading “আমার বাবা”