বিশ্বজোড়া ফাঁদ আমার

সেসব কোনো এক সোনালী অতীতের কথা। তখন আমরা জানতাম ‘ট্যাবলেট’ হল এক ধরনের গোলাকার বস্তু যা শরীর- টরীর খারাপ হলে লোকে বাধ্য হয়ে গেলে, ‘ডিক’ হল গিয়ে টমের ছোটবেলার বন্ধু, কেউ ‘ফলো’ করছে মানেই সন্দেহজনক ব্যাপার আর ‘ফেস’ এর সাথে ‘বুক’ (মন্দ কথা ভাববেন না) মানে বইয়ের কোন সম্পর্ক নেই। অর্থাৎ “ডোন্ট জাজ আ বই বাই ইটস্‌ কাভার”। তারপর নর্দমা দিয়ে প্রচুর মল বয়ে গেছে, ঢাকা তিলোত্তমা বা মিস্‌ বাংলাদেশ বা মিস্টার লন্ডন কিছুই হতে পারেনি কিন্তু আমাদের অভিধানে বিস্তর নতুন শব্দাবলী সংযোজিত হয়েছে। আর যেমন দাড়িদাদু বলে গেছেন বহু বছর আগে “বিশ্বজোড়া ফাঁদ পেতেছ, কেমনে দিই ফাঁকি” আমরা হুবহু তেমনিভাবেই আন্তর্জালের ফাঁসে আট্‌কে পড়েছি।

বেরোনোর পথ নেই, আর বেরোলে বেঁচে থাকাই মুশকিল হয়ে দাঁড়াবে কারণ Continue reading “বিশ্বজোড়া ফাঁদ আমার”