কাঁদব না

সুবর্ণা মুস্তফাকে অপি করিম প্রশ্ন করেছিলেন,
– আচ্ছা, হুমায়ূন ফরিদীর সাথে আপনি বাইশ বছর তার সহধর্মিণী ছিলেন, হঠাৎ কি হয়েছিল যে আপনারা আলাদা হয়ে গেলেন?
সুবর্ণা মুস্তফা ছোট্ট করে উত্তর দিয়েছিলেন,
– বন্ধুত্বটা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল।
তারপর আস্তে করে বলেছিলেন,
– হুমায়ূন ফরিদী যেহেতু আমাদের মাঝে আর নেই কাজেই আমি আর বলতে চাইনা এর চেয়ে বেশি কিছুই। কারণ যদি আমি বলি তাহলে ওর কথা বলার জায়গাটা নেই।
আমি অবাক হয়ে দেখেছিলাম নিজের প্রাক্তনকেও কিভাবে সম্মান করতে হয়। Continue reading “কাঁদব না”

লিডারশীপ

আপনি একটা টিম চালান। ধরা যাক – সেটা কাজেরই টিম। হতে পারে সে টিম অফিস কিংবা কমিউনিটি। কাজের ভিত্তিতে সফলতাও পান। কিন্তু দিনশেষে সেসব সফলতা আপনি ‘আমি আমি’তেই রাখেন। আমি হ্যান করেছি, ত্যান করেছি ব্লা ব্লা। আমি আমি বা ‘আমিত্ব’বাদ পৃথিবীর সবচেয়ে নোংরা মানসিকতা। যতক্ষণ পর্যন্ত ‘আমরা’ না বলতে পারবেন ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি ওই নোংরা মানসিকতারই মানুষ। নেতা হয়ে উঠতে পারেননি। নেতা সবাই হতে পারে না। লিডারশীপ ইজ গড গিফটেড। জোর করে নেতা হওয়া যায় না। নেতা হতে হলে নেতৃত্বগুণ থাকতে হয় বাই ডিফল্ট।

সহকর্মী বা সহযোদ্ধাদের মুল্যায়ন করতে হয়। সবাইকে একই লেভেলে ক্রেডিট দিতে হয়। Continue reading “লিডারশীপ”

আমি আর আমার বউ এবং একজোড়া কানের দুল (প্রথম পর্ব)


সন্ধ্যায় ঘরে ফিরছিলাম। দাঁড়িয়ে আছি কসমেটিকের দোকানের সামনে। আজ আমার বউয়ের জন্মদিন। এই ঢাকা শহরে কাকের সাথে ঝগড়া করে বেঁচে আছি। আমরা দুজনেই কেন যেন জোড় করেই দিনটার কথা ভুলে থাকতে চাই। ভুলে থাকতে গিয়েই ভুল করতে থাকি একের পর এক। সকালে অফিসে যাওয়ার আগে ও আমার পা ছুঁয়ে সালাম করে। ওর মাথায় হাত রেখে ওকে একটু কাছে টানি। যেভাবে পুইশাককে গাছে বাইয়ে দেওয়া হয় বউও সেভাবে আমায় জড়িয়ে ধরে থাকলো। ছাড়তে ইচ্ছে করছিলো না। কেমন একটু সংকোচে দুজন আলাদা হয়ে গেলাম। বউয়ের কপালে চুমু দিয়ে অফিসের দিকে পা বাড়ালাম। Continue reading “আমি আর আমার বউ এবং একজোড়া কানের দুল (প্রথম পর্ব)”

বিশ্বজোড়া ফাঁদ আমার

সেসব কোনো এক সোনালী অতীতের কথা। তখন আমরা জানতাম ‘ট্যাবলেট’ হল এক ধরনের গোলাকার বস্তু যা শরীর- টরীর খারাপ হলে লোকে বাধ্য হয়ে গেলে, ‘ডিক’ হল গিয়ে টমের ছোটবেলার বন্ধু, কেউ ‘ফলো’ করছে মানেই সন্দেহজনক ব্যাপার আর ‘ফেস’ এর সাথে ‘বুক’ (মন্দ কথা ভাববেন না) মানে বইয়ের কোন সম্পর্ক নেই। অর্থাৎ “ডোন্ট জাজ আ বই বাই ইটস্‌ কাভার”। তারপর নর্দমা দিয়ে প্রচুর মল বয়ে গেছে, ঢাকা তিলোত্তমা বা মিস্‌ বাংলাদেশ বা মিস্টার লন্ডন কিছুই হতে পারেনি কিন্তু আমাদের অভিধানে বিস্তর নতুন শব্দাবলী সংযোজিত হয়েছে। আর যেমন দাড়িদাদু বলে গেছেন বহু বছর আগে “বিশ্বজোড়া ফাঁদ পেতেছ, কেমনে দিই ফাঁকি” আমরা হুবহু তেমনিভাবেই আন্তর্জালের ফাঁসে আট্‌কে পড়েছি।

বেরোনোর পথ নেই, আর বেরোলে বেঁচে থাকাই মুশকিল হয়ে দাঁড়াবে কারণ Continue reading “বিশ্বজোড়া ফাঁদ আমার”

কথা

[ছেলে – মেয়ে কথোপকথন]
আপনি একা থাকেন?
– সবাই একাই থাকে। একসঙ্গে থাকার ভান করে মাত্র।
আপনি করেছেন?
– সবাই-ই তো করে। আমি করলে দোষ কোথায়।
আপনাকে তো চিনি না আমি!
– চিনে নিতে কতক্ষণ। জন্মের পরপরই তো সবাই অপরিচিত। ধীরে ধীরে নিজ প্রয়োজনে চিনে নেয়।

[মেয়ে – ছেলে কথোপকথন]
তোমার চোখের প্রতি ফোটা জল, পূর্ণিমাতিথিতে জোনাকীর মতো একেকটা প্রেমের অক্ষরের জন্ম দেয়।
– প্রেম! আবার প্রেম! Continue reading “কথা”

বঙ্গ ললনা ও তাহার ভেড়া সম্প্রদায়

তোমাকে বলিতে গেছি ভীরু পায়ে
আই লাভ ইউ,
দেখি –
সেখানেও কিউ।

কয়েকদিন আগে সন্ধ্যার দিকে কিছু ভাই/ব্রাদারদের সাথে নিয়ে টিএসসি’র মোড়ে বসে আড্ডা দিচ্ছিলাম। আশে-পাশে বেশ কিছু কপোত-কপোতিও ছিল, যাদের মধ্যে একজনের গলার শব্দ অতিমাত্রায় বড় হওয়ার কারণে উনার চ্যাঁচামেচি বেশী কানে আসছিল বিধায় তার দিকে চোখ গেলে খেয়াল করি উনি তার বয়ফ্রেন্ডের বামহাত তার ডানহাত দিয়ে পেঁচিয়ে ধরে আছেন এবং আশেপাশের বন্ধুদের সাথে কখনো একপায়ে দাঁড়িয়ে, কখনো বা দুইপায়ে দাঁড়িয়ে, কখনো তার বয়ফ্রেন্ডের শরীরে ভর রেখে নানান ভঙ্গিমায় দাঁড়িয়ে হাত পা নেড়ে নেড়ে কথা বলে চলেছেন। রমণী অনেক সুন্দরী ছিল, কিন্তু দুঃখ পেলাম তার বয়ফ্রেন্ডের শ্রেনী দেখে। Continue reading “বঙ্গ ললনা ও তাহার ভেড়া সম্প্রদায়”

Page 3 of 512345