মুরগীর খানাপিনা

খদ্দের খেতে খেতে হোটেল মালিককে বললেন,
– “বাঃ, মুরগির মাংসটা তো বেশ নরম আর সুস্বাদু।”
হোটেল মালিক,
– “হবে না কেন স্যার, পোষা মুরগি, আর যা খাওয়াই…কাজু, কিসমিস, প্রোটিনেক্স!”
– “কী? মুরগিকে কাজু…কিসমিস? ব্ল্যাক মানি রাখার আর জায়গা পাচ্ছেন না বুঝি? দেখি আপনার সব হিসাবের খাতাপত্তর।”
খদ্দের খাবারের দাম তো দিলেনই না, উল্টো দু’হাজার টাকা পকেটে পুরে চলে গেলেন। খদ্দেরটি ছিলেন ইনকাম ট্যাক্স অফিসার।

ক’দিন বাদে আরেকজন মুরগি খেয়ে খুব খুশি হয়ে বললেন, Continue reading “মুরগীর খানাপিনা”

Only Me

জমকালো বিয়ের অনুষ্টান। কাজী সাহেব কবুল পরানোর কাজ শেষ করা মাত্রই “কনে” ঠাস করে চড় বসালো “বরের” গালে। স্তব্দ পুরো বিয়ে বাড়ি। কাহিনী কি বুঝার চেষ্টায় হুরমুড়িয়ে এলাকার বড় ভাইয়েরা চলে আসল। বাদ যায়নি পাড়ার মুরুব্বিও। “বর” লজ্জায় গালে হাত দিয়ে বসে রইল কিছুক্ষন। সদ্য বেয়াই -বেয়াইন হওয়া রোমান্টিক মুডে থাকা “বরের” ছোট ভাই বেয়াইন এর কানে ফিসফিস করে বলছে,
– তারা না সুদীর্ঘ ছয় বছর প্রেম করে বিয়ে করেছে।
বেয়াইন – হ্যা করেছে।
বেয়াই – তাইলে ইডা কি করল থাপড়া দিল ক্যা?
বেয়াইন – আরেহ্ একটা মারলে থাপরানো কয় নাহ্। এটাকে বলে চড়।
ভিডিও ম্যান খুব মনোযোগ দিয়ে এই পার্ট টুকু ভিডিও করলেন। Continue reading “Only Me”

এয়ারপোর্ট রম্য

নোয়াখালী বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারের সাথে পাইলটদের ভবিষ্যৎ কথোপকথন।
পাইলট – জি ৫০৭ : আমরা অবতরণের জন্য অনুমতি চাচ্ছি।
নোয়াখাইল্যা এটিসি: : ওমাগো! আন্নেরা চলি আইছেন নি? এক্কানা খাঁড়ান। রানওয়ে হরিষ্কার করি লই! এরই কেরামত, বিমান চলি আইছে। বাতেনের মারে যাই ক চাই হেতির গরুডারে বাইত লই যাইতো, হেতি গরু রানওয়েতে বান্দি কুনায় গেছে? বেয়াক্কল মাইয়া হোলা।
পাইলট – ডি ৪২০: আমরা অবতরণ করতে চাচ্ছি।
নোয়াখাইল্যা এটিসি: মামুর বাড়ির আবদার নি? আগে জি-৫০৭ নাইমব ইয়ার হরেদি তোরা “৪২০” নাইমবি। জি আগে আঁইছে! তোরা ওগ্যা চক্কর মারি আয়!
পাইলট – জি ৫০৭ : রানওয়ে কী ক্লিয়ার হয়েছে? Continue reading “এয়ারপোর্ট রম্য”

ক্রিয়ার প্রতিক্রিয়া

ছাত্রী: স্যার, রিয়েকশন মানে কী?
আমি: প্রতিক্রিয়া।
ছাত্রী: প্রতিক্রিয়া মানে কী?
উফ, প্রতিক্রিয়ার কোন সহজ শব্দ আমার জানা নেই। ছাত্রীকে প্র‍্যাক্টিকালি দেখানো ছাড়া উপায় নেই। এতে আরো ভাল বুঝবে সে।
আমি: ধর, তোমার আপু নতুন একটা জামা পরে আমাকে জিজ্ঞেস করল তাকে কেমন লাগছে। আমি তার দিকে হা করে তাকিয়ে বললাম,
– “ওয়াও তিশা! তোমাকে অসম্ভব সুন্দর লাগছে “।
এইযে আমি তোমার আপুকে দেখে অবাক হয়ে বললাম, তাকে সুন্দর লাগছে এটাই প্রতিক্রিয়া। পাশের রুম থেকে ছাত্রীর বড় বোন এসে আমার দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসি দিল। মেয়ে মানুষ আমার দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসলে আমি বড্ড লজ্জা পাই। আমি লজ্জায় মাথা নিচু করে ফেললাম। Continue reading “ক্রিয়ার প্রতিক্রিয়া”

টরে টক্কা

একটি ইন্টারভিউ চলছে, কিন্তু চাকরি বসের এর শালার জন্য আগে থেকেই ঠিক করা আছে। তবুও ইন্টারভিউ হচ্ছিল। ইন্টারভিউ হচ্ছিল অফিসিয়ালি দেখানোর জন্য। কিন্তু সেই ধরনের প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করা হচ্ছিল, যার কোনো জবাব দেওয়া সম্ভব নয়। একের পর এক প্রার্থী ঢুকছিল, আর বের হচ্ছিল। সব শেষে রামুর পালা এল।
Interviewer (Boss) : “আপনি নদীর মধ্যে একটি নৌকার উপর আছেন, এবং আপনার সঙ্গে মাত্র দুটো সিগারেট ছাড়া আর কিছুই নেই। তাহলে আপনি কিভাবে অন্তত একটি সিগারেট জ্বালাবেন?
রামু সিরিয়াসলি একটু চিন্তা করে বলল,
– “Sir, এর তিন চারটে সমাধান আছে।”
Interviewer (Boss) একটু আশ্চর্য হলেন। যে প্রশ্নের কোনো উত্তর হয় না, সেখানে এর কাছে তিন চারটে সমাধান আছে,
– “আচ্ছা ঠিক আছে, বলুন।” Continue reading “টরে টক্কা”

নোয়াখাইল্যা বরিশাইল্ল্যা

রাস্তায় এক নোয়াখাইল্লা উকিলের সাইকেলের মাডগার্ডে লেগে বরিশাইল্লা ভবেশবাবুর ধুতি ছিঁড়ে গেলো! ভবেশবাবু সাথে সাথে উকিলকে হাত ধরে সাইকেল থেকে নামিয়ে বললেন:
ভবেশবাবু: যাও কোম্বে? মোর নতুন ধুতি ছেরছ, দাম না লইয়া তোমারে ছাড়তে আছিনা!
উকিল জিজ্ঞেস করলেন: আন্নের ধুতির দাম কয় টেঁয়া?
ভবেশবাবু বললেন: ২শ টাহা দেলেই মুই খুশী!
উকিল পকেট থেকে ২শ টাকা বের করে দিয়ে দিলেন! ভবেশবাবু ২শ টাকা পকেটে পুরে যেই রওনা হবেন,
উকিল ভবেশবাবুর হাত ধরে বললেন: যান কন্ডে, ধুতির দাম দি হালাইছি, অন ধুতি ইগা আরঁ। Continue reading “নোয়াখাইল্যা বরিশাইল্ল্যা”

Page 1 of 41234