হেলদি রিলেশন, হেলদি মি

দ্য পারসন হু হ্যাজ প্রবলেমস ফর এভরি সল্যুশন। পৃথিবীর কোন কিছু দিয়ে আপনি এদের হ্যাপি করতে পারবেন না। এমনকি নিজের দুইটা কিডনি খুলে নিয়েও যদি এদের হাতে তুলে দেন, তাহলে বলবে খালি কিডনিই দিলা? লিভার আর লাং টাও দিতা! পিপল হু আর নেভার স্যাটিসফায়েড, নেভার হ্যাপি, নেভার থ্যাঙ্কফুল। আসে পাশের মানুষের উপর তো নাই, এমনকি আল্লাহ তায়ালার উপরেও না। তারা সারক্ষন বিলাপ করতে থাকবে, আমার কপালে সুখ লেখে নাই আল্লাহ, সারাটা জীবন খালি কষ্টই করলাম। অথচ পবিত্র কুরআনে সুরা আর রাদ এর এগার নাম্বার আয়াতে পরিষ্কার করে বলা আছে,
“আল্লাহ কারো অবস্থার পরিবর্তন করেন না, যতক্ষণ পর্যন্ত না সে নিজে তার অবস্থার পরিবর্তন করে।”
সমস্যা হল এই জাতীয় নেগেটিভ এনার্জির মানুষরা শুধু নিজেদের জন্য ক্ষতিকর না, Continue reading “হেলদি রিলেশন, হেলদি মি”

সৌন্দর্য ও কর্পোরেট বেনিয়া (শেষ পর্ব)

অথচ আগের যুগে জিরো ফিগারের মেয়ে দেখলে লোকে নির্ঘাত ভাবতো, মেয়েটা নিশ্চয় অভাবী পরিবারের, না খেতে পেয়ে এমন শুকিয়ে গেছে। এগুলো আসলে কিছুই না। সবই কর্পোরেট ব্যবসা। মোটা বা চিকন, কালো বা ফর্সা – কোনটা ফ্যাশন এটা নির্ধারণ করে কর্পোরেট ব্যবসায়ীরা। তারাই তাদের প্রয়োজনে বিভিন্ন সময়ে সৌন্দর্যের বিভিন্ন সংজ্ঞা দেয়, আর আমরা সেই অনুযায়ী সুন্দর হওয়ার জন্য ঝাঁপিয়ে পরি। ফোর্বস ম্যগাজিন অনুযায়ী বিশ্বে প্রতিবছর কসমেটিক ব্যবসা হয় প্রায় ২৭০ বিলিয়ন ডলার (১ বিলিয়ন= ১০০ কোটি)! এর মধ্যে L’oreal এবং Maybelline কোম্পানি সবচেয়ে বেশি ব্যবসা করে। Continue reading “সৌন্দর্য ও কর্পোরেট বেনিয়া (শেষ পর্ব)”

বাঁচুন, অতিরিক্ত চিন্তা থেকে

সব কাজ করার আগে ভেবে চিন্তা করে কাজ করতে হয় তা আমরা সবাই জানি, কিন্তু চিন্তা যখন দুশ্চিন্তা/অতিরিক্ত চিন্তায় রূপ নেয় তখন আসলেই চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। কেননা অতিরিক্ত চিন্তা নিয়ে আসতে পারে নানা রকম সমস্যা। যখন আমরা অতিরিক্ত চিন্তা করি তখন আমাদের সামনের সব কিছু ঘোলাটে মনে হয়, সঠিক সিদ্ধান্ত আমরা নিতে পারি না। নানা রকম নেতিবাচক চিন্তা ভাবনা মনে জায়গা করে নেয়। এতে স্বাভাবিক কাজ-কর্মে ব্যঘাত ঘটে। যদি আপনিও এই দলের অন্তর্ভুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে এর থেকে বাঁচার জন্য কিছু উপায় আপনার জন্য:

সচেতনতাই বদলানোর প্রথম উপায়
দুশ্চিন্তা বা অতিরিক্ত চিন্তা থেকে বাঁচার উপায় খোঁজার আগে প্রথমে নিজেকে বুঝতে হবে Continue reading “বাঁচুন, অতিরিক্ত চিন্তা থেকে”

সৌন্দর্য ও কর্পোরেট বেনিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)

মানুষ ভেদেও একেক জনের সৌন্দর্য একেক রকম হয়। আজ যে ছেলেটি কিংবা মেয়েটিকে দেখে ভাবছি সে দেখতে কত বাজে, সে মানুষটিই হয়তো তার ভাই-বোন, ছেলে-মেয়ে কিংবা মা-বাবার কাছে একজন হিরো কিংবা স্ত্রীর কাছে একজন আদর্শবান স্বামী। যে মেয়েটিকে বলছি সে অনেক কুৎসিত, হয়তো সেই মেয়েটিই তার পিতার কাছে একজন রাজকন্যা, তার স্বামীর কাছে রাণী, তার ছেলে-মেয়ের কাছে একজন এঞ্জেল। অন্যদের চোখে আপনি দেখতে যেমনই হন না কেনো, মনে রাখবেন আল্লাহ আপনাকে সবচেয়ে সুন্দর হিসেবেই তৈরি করেছেন। Continue reading “সৌন্দর্য ও কর্পোরেট বেনিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)”

বন্ধু তুই কেমন আছিস বল

যত যাই বলো, দিনশেষে তোমার জীবনে অল্প কয়েকজন মানুষই তোমার আপন। অল্প কয়েকজন মানে নিতান্তই হাতেগোণা কয়েকজন। হ্যাঁ, তোমার সাথে অনেক মানুষের পরিচয় থাকতে পারে। অনেক মানুষের সাথে তোমার ওঠাবসা থাকতে পারে। অনেক লিংক, অনেক কানেকশন। অনেকে তোমাকে দেখলে সালাম দেয়, তেল মারে, প্রশংসা করে কিংবা আড্ডা দেয়। কিন্তু দিনের শেষে এই বিশাল জনগোষ্ঠীর কাছে গিয়ে তুমি শান্তি পাবা না। তীব্র মন খারাপের সময়, ডিপ্রেসনের সময়, বিপদের মূহুর্তে, কাজের বেলায় পাশে পাবা ঐ ‘হাতেগোণা’ অল্প কয়েকজনদের কাউকেই। ট্রাস্ট মি। Continue reading “বন্ধু তুই কেমন আছিস বল”

চক্র

ছেলেবেলায় অঞ্জন দত্তের গানের প্রেমে পড়েছিলাম। পরে একসময় মনে হলো গানের মেয়ে পাশের বাড়ির মেয়েটা নয়, অন্য একজন। গানের মেয়েটার নাম বেলা বোস। পাশের বাড়ির মেয়েটার নাম পুতুল। সেদিন থেকে অঞ্জন দত্তের গান শুনে আর ভালো লাগল না, মনে হলো লোকটা গানে মিথ্যা কথা বলছে সব! একসময় পুতুলদের বাড়িটা অনেক উঁচু হয়ে গেল। আমাদের নিচু বাড়ির জানালা দিয়ে আর কিছু দেখা গেল না। ছেলেবেলার একটা নীল আকাশ হারিয়ে গেল ইটের দেয়ালে। ২০০৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে একটা ধবধবে সাদা বিড়াল ছাদ থেকে পড়ে মারা গিয়েছিল। বিড়ালটার নিথর দেহ দেখে মনে হয়েছিল আরাম করে ঘুমিয়ে আছে। খবরটা পত্রিকায় আসেনি। বিড়ালের মৃত্যু কোনো খবর নয়। সুতরাং পত্রিকায় আসার কথাও না। তবে আমার জন্য ব্যাপারটা জরুরি ছিল। বিড়ালটার নাম জানি না। হঠাৎ করে প্রচণ্ড মানসিক ধাক্কা খেয়েছিলাম। বিড়ালটা আমার খুব প্রিয় ছিল। হয়তো পুতুল নামক মেয়েটার থেকেও প্রিয়। কারণ পুতুলের কথা আমার আর মনে নেই। Continue reading “চক্র”

Page 1 of 612345...Last »