প্রাথমিক চিকিৎসায় জানা অজানা

সবার জানাটা খুব জরুরী, দুর্ঘটনা কখনও বলে আসে না। হঠাৎ আপনি আর আপনার পাশের কেউ দুর্ঘটনায় পড়তে পারেন। কয়েকদিন আগেই বাসের চাপায় এক ছাত্র হাত হারিয়েছে, এসব জানা থাকলে হয়তো তাকে হাতটা হারাতে হতোনা। অনেক সময়ই দেখা যায় রোড এক্সিডেন্ট, মেশিনে বা ধারালো কিছুর আঘাতে আমাদের হাতের আঙুল বা পুরো হাতটাই কেটে পড়ে যায়। পা এর ক্ষেত্রেও হতে পারে। হসপিটালে নিয়ে আসার পর কাটা জায়গা সেলাই করা সম্ভব হলেও শরীরের হারানো অংশ আর ফিরে পাওয়া যায় না। অনেকে কাটা আঙুল বা অন্য অংশ সাথে করে নিয়ে আসেন জোড়া লাগিয়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু আমরা পারি না কারন নিয়ম মেনে না নিয়ে আসায় সেটা নষ্ট হয়ে যায়। আমরা আজ শিখবো কিভাবে এক্সিডেন্ট হলে শরীরের বিচ্ছিন্ন অংশ সাথে করে নিয়ে আসতে হবে জোড়া লাগানোর জন্য। পদ্ধতিটি কিন্তু খুব সহজ। Continue reading “প্রাথমিক চিকিৎসায় জানা অজানা”

পর্নগ্রাফি ও কোকেন সমাচার (শেষ পর্ব)

পর্ন
আর আপনার ব্রেইনে বয়ে যাওয়া ডোপামিনের বন্যা শুধু ক্ষনিকের সন্তুষ্টিই দেয় না, ব্রেইনে স্পন্দনের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে পুরস্কার পাওয়ার নতুন পথ অর্থাৎ রিওয়ার্ড প্যাথওয়ে তৈরী করে, যা একজন ইউজারকে আগের সেই কাজে ফিরিয়ে নিয়ে যায় যে কাজের মাধ্যমে কেমিক্যালটা নির্গত হয়েছিল। একজন ড্রাগ বা পর্ন ইউজার যত বেশী ড্রাগ নেয় বা পর্ন দেখে, তাদের ব্রেইনে এই প্যাথওয়েগুলো তত বেশি তৈরি হয়। ড্রাগ/পর্ন ব্যবহার সহজ থেকে সহজতর করতে থাকে। যার ফলে একজন মানুষ বার বার ড্রাগ নিতে চায় কিংবা পর্ন দেখতে ফিরে আসে, যদিও তারা তা অন্তর থেকে চায় না। Continue reading “পর্নগ্রাফি ও কোকেন সমাচার (শেষ পর্ব)”

পর্নগ্রাফি ও কোকেন সমাচার (প্রথম পর্ব)

কোকেইন ও পর্নের মধ্যে আপাতদৃষ্টিতে কোনো মিল নেই। তবে গবেষণায় দেখা যায়, পর্ন দেখার ফলে আমাদের ব্রেইনে এক ধরনের আনন্দদানকারী কেমিক্যাল উৎপন্ন হয়। একই কেমিক্যাল ড্রাগ ব্যবহারকারীদের ব্রেইনেও উৎপন্ন হয়। পর্ন বা ড্রাগে আসক্ত ব্রেইন নতুন করে নিউরাল সার্কিট (Neural Circuit) তৈরি করা শুরু করে। শুনতে আজব লাগলেও, এটাই সত্যি। অসুন, ব্যাপারটা নিয়ে আরেকটু গভীরে যাওয়া যাক। আগেই বলেছি, কোকেইন ও পর্নের মধ্যে সাধারণত তেমন কোনো মিল পাওয়া যায় না। একটি পাওয়া যায় জীর্ণ চিপা-চুপায়; অন্যটি ডাউনলোড করা যায় ফ্রিতে। একটির অভ্যাস খুব দ্রুত প্রবল হতে থাকে, যেখানে অন্যটি নির্ভর করে হাই স্পিড ইন্টারনেট কানেকশনের মূল্যের উপর। Continue reading “পর্নগ্রাফি ও কোকেন সমাচার (প্রথম পর্ব)”

দেহ কারখানা

যে মানব শরীরকে মানুষ এত সুন্দর করে সাজায় যাকে নিয়ে এত অহংকার করে তার শেষ পরিনতি। মৃত্যুর পরে শরীরে ধীরে ধীরে পচন ধরতে শুরু করে। এ কথা সবারই জানা। কিন্তু মৃত্যুর পর মুহূর্ত থেকে পচন ধরা পর্যন্ত কী কী শারীরিক পরিবর্তন হয় বা কোন কোন পথ ধরে শরীরে পচন ধরতে শুরু করে, আসুন তা জেনে নিই। চিকিৎসা শাস্ত্র মতে, মৃত ঘোষণার অর্থ এই নয় যে শরীরের প্রতিটি কোষের মৃত্যু হয়েছে। হৃদযন্ত্র পাম্প করা বন্ধ করলে, কোষ গুলো অক্সিজেন পায় না। অক্সিজেন পাওয়া বন্ধ হলে পেশিীগুলো শিথিল হতে শুরু করে। পাশাপাশি অন্ত্র এবং মূত্রস্থলী খালি হতে শুরু হয়।শরীরের মৃত্যু ঘটলেও, অন্ত্র, ত্বক বা অন্য কোনও অংশে বসবাসকারী কোটি কোটি ব্যাক্টেরিয়া তখনও জীবিত থাকে। মৃত্যুর পর শরীরের অভ্যন্তরে যা ঘটে, সে সবের পিছনেই এই কোটি কোটি ব্যাক্টেরিয়ার অবদান থাকে। Continue reading “দেহ কারখানা”

Normal Phobias You Didn’t Know Had Names

Who says phobias have to be weird? Everyone’s scared.
1. Anuptaphobia
The fear of being or staying single. You know, like, forever.
2. Athazagoraphobia
The fear of being forgotten, ignored, or abandoned. This phobia has a theme song.
3. Blennophobia
A fear of slime. Watching old episodes of You Can’t Do That on Television might be just what the doctor ordered.
4. Gelotophobia Continue reading “Normal Phobias You Didn’t Know Had Names”

এন্টিবায়োটিকের জ্যাকেট বৃত্তান্ত

ঘটনা এক –

– ডাক্তার, আমার ছেলের কী হয়েছে?
– জ্বর হয়েছে।
– হে আল্লাহ এ কী অসুখ দিলা আমার ছেলেরে? কী পাপ করছিলাম আমি? আমার এখন কী হবে?
– যা হবার হয়ে গেছে। ছেলেকে বাড়িতে নিয়ে যান। যা খেতে চায় খাওয়ান। চেষ্টা করুন শেষকটা দিন যাতে ভালো কাটে তার।

ঘটনা দুই –

-আমার কী হয়েছে ডক্টর?
– আপনার হাতে ফোঁড়া হয়েছে।
– হোয়াট? আর ইউ শিউর?
– ইয়েস। Continue reading “এন্টিবায়োটিকের জ্যাকেট বৃত্তান্ত”

Page 1 of 212