ওয়েটিংরুম

এক লোক ট্রেন থেকে নামলো, আরেক ট্রেনে উঠবে 20 মিনিট পর। এর মাঝখানে সে ওয়েটিং রুমে অপেক্ষা করার জন্য বসলো। ওয়েটিং রুমে ঢুকেই তার চোখে পড়লো রুমের লাইটটি নষ্ট। তাই সে একটি এনার্জিবাল্ব কিনে লাগালো। তার পর খেয়াল করলো রুমে অনেক মাকড়সার জাল। তাই সে একটি ঝাড়ু কিনে রুমটি পরিষ্কার করলো। তারপর খেয়াল করলো রুমের ফ্লোরে ময়লা। তখন সে রুম ঝারু দিলো। তারপর সে খেয়াল করলো রুমের বসার চেয়ারগুলো বেশি একটা আনন্দদায়ক নয়। তাই সে একটি আরামদায়ক চেয়ার কিনলো। এখন সে রুমটি সাজানোর জন্য কিছু জিনিস কিনে রুমটি সাজালো। Continue reading “ওয়েটিংরুম”

মৃত্যু এক পদাবলী

“আমি জন্মের প্রয়োজনে ছোট হয়েছিলাম,
এখন মৃত্যুর প্রয়োজনে বড় হচ্ছি।”
– নির্মলেন্দু গুণ

যদি আজ আমি মারা যাই হয়তো খুব কাঁদবে সবাই। যে আমার শত্রু ছিলো সে ও হয়তো আজ আমাকে দেখতে আসবে। বাড়ি ভরা মানুষ কত হৈ চৈ থাকবে কিন্তু আমি আর বলবো না, “মা এত হৈ চৈ ভালো লাগছে না বাইরে থেকে ঘুরে আসি।” কিছু মানুষ পানি গরম দিচ্ছে আর কিছু মানুষ খাটিয়া আনতে গেলো। একদল গেলো কবর খুড়তে। তখন হয়তো আর বলবো না, “মা অমুক মারা গেছে কবর খুঁড়তে গেলাম।” একসময় বাঁশও কাটা হলো। Continue reading “মৃত্যু এক পদাবলী”

Page 5 of 512345