Information Technology

  •  
  •  
  •  
  •  

ইন্ডিয়ান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একটি সমীকরণ দিয়েছেনঃ IT + IT = IT. ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে, Information Technology + Indian Talent = India Tomorrow. সাথে এটাও বলেছেন,
– মানুষের জীবন-যাপন অচিরেই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে নিয়ন্ত্রিত হতে যাচ্ছে।
কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার কথা শুনে অনেকেই আজকাল নড়েচড়ে বসেন,
– ‘এত্ত বড় সাহস, মাইনশের থেইক্যা নাকি যন্ত্রের বুদ্ধি বেশি হইবো। মাইনশের কাজ নাকি যন্ত্র করবো, কম্পিউটার করবো, ক্যামতে কি!’
প্রথমটা ঠিক নাই, দ্বিতীয়টা ঠিক আছে। প্রথমটা ঠিক নেই কারণ, যন্ত্রের যে বুদ্ধি সেটা আসলে মানুষের বুদ্ধিরই পরিবর্তিত রূপমাত্র। অতএব, যন্ত্র নয়, বরং যন্ত্রের পিছনের মানুষ বা মানুষগুলোই প্রকৃত বুদ্ধিমান। আর দ্বিতীয়টি ঠিক আছে, কারণ বাইরের দেশগুলোর দিকে তাকালেই দেখা যাবে চালকবিহীন গাড়ী কিংবা ড্রোন নির্ভর প্যাকেজ ডেলিভারি মোটামুটি চালু হয়ে গেছে বা হওয়ার পথে।

তবে, এতে করে আমাদের বিচলিত হবার কোনও কারণ নেই। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাতো দূরে থাক, আসল বুদ্ধিমত্তা পর্যন্ত এখানে এখনো চালু হবার সুযোগ পায়নি। ছোট্ট দুইটা উদাহরণ দিই। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কথাই ধরা যাক। প্রতিমাসে প্রয়োজনীয়-অপ্রয়োজনীয় মিলে হাজার হাজার চিঠি চালাচালি করতে হয়, অথচ এর ৮০ ভাগ চিঠির কাজই ইমেইলে সারা যেত। মন্ত্রণালয়ের কথা বলি। মন্ত্রণালয় বলে, গবেষণা প্রস্তাব জমা দেবার ফর্ম থেকে শুরু করে নির্দেশাবলী সব অনলাইনে আছে, তবে অফিসে গিয়ে সেই ফর্মের একটা হার্ড-কপিও কিনতে হবে। এতে করে এক ঢিলে দুই পাখি মারা গেলো; পুরনো স্টাইলেই কাজ করা গেলো কিন্তু সাথে সাথে সবাইকে বলাও গেলো আমরা ডিজিটাল হয়ে গেছি। আর, উদাহরণ দিতে চাইনা। মোদী সাহেব বললেই হবে নাকি। এত সহজে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আমাদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না। প্রয়োজনে খাতা-কলম বাদ দিয়ে প্যাপিরাস আর নলখাগড়ায় ফিরে যাবো।

১৮/১০/২০২০, ১০.৩১ PM

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *